আমার জামাই খুব ভাল মানুষ, আলহামদুলিল্লাহ। অনেক টেক কেয়ার করে। খুব ভাল বাসে আমাকে, আমার কথা সবসময় ভাবে। একা সংসার, আমার জামাই, আমি এবং আমার মেয়ে। টোনাটুনি আর টুনটনি এনিয়ে আমাদের সংসার। সারাদিন অনেক কষ্ট হয়, সব কাজ একাই করি।

মেয়ের পিছনে দৌড়াতে দৌড়াতে দিন পার হয়ে যায় । মেয়ে আমার ভারি দুষ্ট হয়েছে। সারাদিন বাবা বাবা করে, আজকাল আবার বাবার সাথে অফিস যাবার বায়না করে। বাবা অফিসে গেলে সারাদিনে হাজার বার কল দিবে বাবাকে। যদিও বাবা কল করে আমাকে, মেয়ের খোজ খবর নেয়। দুপুরে কল দিয়ে খবর নেয় খেয়েছি কিনা, অফিস থেকে ফেরার সময় তিনি আমার জন্য কিছু কিছু নিয়ে আসে। আমি যত মানা করি শুনতে নারাজ, মশাই। আমি বলি তোমার টাকা নষ্ট করা দরকার কি? যদিও আমি মনে মনে
খুশি হই।

কে শোনে কার কথা। অফিস থেকে এসে কাপড় ছেড়েই বলবে “কি আছে আমাকে দাও, আমি সাহায্য করি।” ,মেয়ের টেক কেয়ার করবে।  আমি বলি কিছু নেই, তুমি রেস্ট কর, সারাদিন অফিস করে এসেছ। বলবে তুমিও তো সারাদিন কাজ করেছ। আমি সেই সকালে যাই সন্ধ্যায় ফিরি, “দাও কাটাকাটি আমি করি”

বলবে সংসার তো আমারও

আমি যদি রাগ করি, না খেয়ে থাকি বা অনেক টায়ার্ড হয়ে ঘুমিয়ে পড়ি নিজ হাতে আমাকে খাইয়ে দিবে। আর অন্য রুমে গিয়ে ঘুমালে টানাটানি করে নিয়ে যাবে, বলে চলতো তোমাকে ছাড়া আমার ঘুম হয় না। বলবে সারাদিন অফিসে থাকি, তুমি যদি কিচেনে সময় দাও আমারইতো লস। “হাসি দিবে বলবে বুঝছ এবার”

শুক্রবার আবার আমাকে ছুটি দেওয়ার চেষ্টা করবে, চল আজ তোমার ছুটি বাদ দাও তো রান্নাবান্না। আজকে বাহিরে খাব।

আসলে এই ছোট ছোট জিনিসগুলো আমার কাছে অনেক কিছু, অনেক দামি।
আলহামদুলিল্লাহ এমন জামাই পেয়েছি।
টাকা পয়সা দিয়েও এমন সুখ পাওয়া যায় না।
আল্লাহ আমার ছোট সংসারে পাওয়া না পাওয়ার মধ্যে এ দুনিয়ায় জান্নাত দান করেছেন।

আমিন।

Facebook Comments